পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর নিরস্ত্র পদে ৩৮ ব্যাচে পরীক্ষার প্রস্তুতির A to Z

#পুলিশের_সাব_ইন্সপেক্টর_নিরস্ত্র পদে ৩৮ ব্যাচে পরীক্ষার প্রস্তুতির A to Z ।

সম্প্রতি বাংলাদেশ পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর (নিরস্ত্র) পদে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। এই চাকরির পরীক্ষা পদ্ধতি এবং সুযোগ-সুবিধা সম্পর্কে চাকরি প্রার্থীরা জানলে উপকৃত হবেন।

এ পদে নারী ও পুরুষ উভয় প্রার্থীই আবেদনের সুযোগ পাবেন।
প্রাথমিকভাবে শারীরিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের আবেদন ফরম পূরণ করে ৭ মের মধ্যে নিজ নিজ রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়ে জমা দিতে হবে।

আগামী ২৮, ২৯ ও ৩০ এপ্রিল সকাল ৯টায় শারীরিক মাপ ও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এটি অনুষ্ঠিত হবে পুলিশের আটটি বিভাগীয় রেঞ্জে।

এ সময় প্রার্থীদের
১.শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদের মূল কপি,
২. সর্বশেষ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান কর্তৃক প্রদত্ত চারিত্রিক সনদের মূল কপি, 
৩.জাতীয় পরিচয়পত্রের মূল কপি, 
৪.নাগরিকত্ব সনদের মূল কপি, 
৫.সত্যায়িত ৩ কপি সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবিসহ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে আনতে হবে।

#আবেদনের_যোগ্যতা
সাব-ইন্সপেক্টর পদে আবেদন করতে হলে আবেদনকারীকে ন্যূনতম স্নাতক পাস হতে হবে। পাশাপাশি কম্পিউটারে অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। প্রার্থীদের অবশ্যই বাংলাদেশের নাগরিক এবং অবিবাহিত হতে হবে। সাধারণ প্রার্থীদের বয়স ১ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে ১৯ থেকে ২৭ বছর এবং মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের ক্ষেত্রে একই তারিখে বয়স ১৯ থেকে ৩২ বছরের মধ্যে হতে হবে।

#শারীরিক_যোগ্যতা-
→পুরুষ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে উচ্চতা ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি, বুকের মাপ স্বাভাবিক অবস্থায় ৩০ ইঞ্চি ও সম্প্রসারিত অবস্থায় ৩২ ইঞ্চি হতে হবে। 
→নারী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে উচ্চতা কমপক্ষে ৫ ফুট ২ ইঞ্চি হতে হবে।

#যে_দিন_পরীক্ষা
নির্ধারিত তারিখে শারীরিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের প্রথমে লিখিত পরীক্ষা নেয়া হবে।

♦১৬ জুন ২০১৯ তারিখ 
সকাল ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত 
#ইংরেজি(৫০) ও বাংলা(৫০)=১০০
#আমদের_কোচিং_থেকে_আপনাকে_শিট_ও_সাজেশন_প্রদান_করা_হবে_গতবারের_মতো_কমন_চলে_আসবে_ইনশাল্লাহ। 
আমাদের ক্লাসগুলো করলে বাংলা ও ইংরেজিতে সবচেয়ে দূর্বল প্রার্থী ও সেরা নং তুলতে পারবেন ইনশাআল্লাহ।]
বাংলা রচনা, ভাব সম্প্রসারণ, বাগধারা দিয়ে বাক্য গঠন, এক কথায় প্রকাশ ও অনুবাদ বিষয়ে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হবে। 
৩৭তম এসঅাই নিয়োগের মতো এবারও আমাদের শিট থেকে কমন চলে আসবে ইনশা আল্লাহ।

♦১৭ জুন ২০১৯ তারিখ 
সকাল ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত 
সাধারণ জ্ঞান(৫০) ও পাটিগণিত (৫০) বিষয়ে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হবে।
[গনিতে পূর্ণ নম্বর মানেই আপনার লিখিত পাস নয় চাকুরীর পথই সহজ হয়ে যায়। আমাদের বিসিএস ক্যাডার শিক্ষক ইনশাআল্লাহ আপনার এই বিষয়টা নিশ্চিত করবেন।

♦১৮ জুন ২০১৯ তারিখ 
সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত 
২৫ নম্বরের মনস্তত্ত্ব পরীক্ষা হবে। 
সাধারণ জ্ঞান ও মনস্তাত্ত্বিক বিষয়ে ক্লাসের পড়া ও শিটই যথেষ্ট।

পরীক্ষার স্থান প্রার্থীদের পরবর্তী সময়ে জানানো হবে।

#আবেদনপত্র_জমা
শারীরিক মাপ ও শারীরিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের সংশ্লিষ্ট রেঞ্জের ডিআইজির কাছ থেকে ওই দিনই তিনশত টাকা নগদ মূল্যে আবেদনপত্র ক্রয় করতে হবে। এরপর বাংলাদেশ পুলিশের অনুকূলে যেকোনো রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক থেকে পরীক্ষার ফি ৩০০ টাকা ১-২২১১-০০০০-২০৩১ অথবা ১২২০২০১১৩৫৯৫৪১৪২২৩২৬ নম্বর কোডে ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে জমাপূর্বক চালানের মূল কপিসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংযুক্ত করতে হবে।

আবেদন ফরম সঠিকভাবে পূরণ করে ৭ মে ২০১৯ তারিখের মধ্যে নিজ নিজ রেঞ্জ ডিআইজির কার্যালয়ে জমা দিতে হবে।

আর্থিক লেনদেনে জড়িত থাকার কোনো অভিযোগ প্রমাণিত হলে নিয়োগ বাতিল করা হবে।

সাব-ইন্সপেক্টর নিয়োগ ২০১৯ এ যারা পরীক্ষা দিতে আগ্রহী তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি..

৩৫, ৩৬ ও ৩৭তম এস আই নিয়োগের আগে আমরা আয়োজন করে যাচ্ছি "এস. নিয়োগ লিখিত কোচিং ও মডেল টেস্ট"। উক্ত ব্যাচ সমূহে আমাদের প্রার্থীদের থেকে ৬০% প্রার্থী লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে গতবারও এবং চূড়ান্তভাবে ২৭জন গর্বিত পুলিশ অফিসার হিসাবে বর্তমানে সারদায় প্রশিক্ষণ গ্রহণ করছেন।

৩৭তম ব্যাচে আমরা মাত্র ২১ দিন সময় পেয়েছিলাম ক্লাস ও পরীক্ষার জন্য। এবার আমরা মূলত তুলনামূলক (২ মাস)দিগুণ সময় হাতে পাচ্ছি যাতে থাকছে-
প্রতিটি বিষয়ের পর্যাপ্ত ক্লাস ও পরীক্ষা এবং সাজেশন প্রদান করা হবে।
আপনাদের আমরা ৩৭তম ব্যাচের মতো বিষয় ভিত্তিক লেকচার শিট ও সাজেশন প্রদান করবো। গত ব্যাচে বাংলা ইংরেজি গণিত ও সাধারণ জ্ঞান সহ সকল বিষয়ে আমাদের সাজেশান্স থেকে হুবহু কমন এসেছিল।
বাংলাদেশ পুলিশের একজন গর্বিত অফিসার হওয়া যদি আপনার সত্যিই টার্গেট থাকে তাহলে আপনি আজই যোগাযোগ করুন আমাদের অফিসে। 
আমরা আপনার চাকুরী নিশ্চিত করবো না আমরা আপনার চাকুরী পাওয়ার পথ সহজ করে দিবো ইনশাআল্লাহ।
ক্লাস টাইম সকাল- ৯টা বিকাল-৫টা/রমজানে ৩টা
কোর্স ফি-৩৫০০/-
যোগাযোগ- চকবাজার সিঙ্গার শো-রুমের উপরে।
বিসিএস হেল্পলাইন ভবন -৩য় তলা, চট্টগ্রাম।
মোবাইল -01811110101/01776196273

এবার জেনে নিন (এস. আই)
হলে আপনি কী কী সুবিধা পাবেন।

#এস.আই(নিরস্ত্র):
পুলিশের এই পদটি সেকেন্ড ক্লাস গেজেটেড অফিসার। সাব-ইন্সপেক্টরকে পুলিশের বাহিনীর মেরুদন্ড বলা হয়। কারণ, তারা ইনভেস্টিগেশন অফিসার হিসাবে প্রায় সকল মামলার তদন্ত করা সহ মাঠ পর্যায়ে আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ করে। আর নিরস্ত্র মানে যারা মামলার তদন্ত করতে পারবে এবং অস্ত্র বহন করতে পারবে। সশস্ত্র পুলিশ সদস্যরা মামলা তদন্ত করতে পারবে না তবে অস্ত্র বহন করবে।

-----------------------------------
পুলিশ সাব-ইন্সপেক্টর পদে চাকুরি পেতে আপনাকে অতিক্রম করতে হবে মোট ৫ টি ধাপ। এধাপ গুলো সফলতার সাথে অতিক্রম করতে পারলেই পাবেন স্বপ্নের চাকুরি।
ধাপগুলো হলোঃ-
১. শারিরীক বাচাই ও প্রাথমিক মেডিকেল।
২. লিখিত পরীক্ষা
৩. মৌখিক ও Aptitude test
৪. চূড়ান্ত মেডিকেল
৫. ভেরিফিকেশন
এ ৫ টি ধাপের যেকোন ১টি ধাপে বাদ পড়লে পরের ধাপের স্বপ্ন শেষ।
------------------------------------
স্বপ্নযাত্রার প্রথমধাপ অর্থাৎ প্রাথমিক বাচাই নিয়ে কিছু নির্দেশনা।
এধাপে আপনাকে ৪টি শারিরীক সক্ষমতার মুখোমুখি হতে হবে।

০১. দৌড়ঃ- এখানে আপনাকে প্রায় ২০০ মিটার দৌড় দিতে হবে। প্রার্থীর সংখ্যাভেদে প্রতি ১০ জন থেকে ৩-৫ জন বাদ দেওয়া হয়। তাই এক্ষেত্রে প্রথম ৫ জনের মধ্যে থাকাই নিরাপদ।

০২. লং জাম্পঃ- প্রথম ধাপ সফলতার সাথে অতিক্রমের পর আপনাকে ১২ ফুট লং জাম্প দিতে হবে। এক্ষেত্রে ডিসকোলিফাইড যেন না হোন সর্তক থাকবেন।

০৩. হাই জাম্পঃ- দ্বিতীয় ধাপের পর আপনাকে ৪-৪.৫ ফুট হাই জাম্প দিতে হবে। এ বয়সে এটুকু জাম্প দিতে দিতে সমস্যা হতে পারে। তাই এসময়টুকুতে লং জাম্পের ভালো প্রস্তুতি নিবেন।

০৪. রোপ ক্লাইপিংঃ- ৩০ ফুট উচুঁতে মোটা রশি বেয়ে উপরে উঠতে হবে। সাহস আর বাহুতে শক্তি থাকলে এটা আপনার সমস্যা করতে পারবেনা।
-------------------------------------
এধাপগুলো সফলতার সাথে মোকাবেলার পর আপনার কাগজপত্র যাচাইকরে ০৩ টাকা মুল্যের আবেদনপত্র দেওয়া হবে। নির্দিষ্ট দিনে সকাল ৮.৩০ এর পরির্বতে সকাল ৮.০০ এর আগে লাইনে পৌচাবেন।

সুযোগ-সুবিধা:
১। শুরুতে প্রায় ত্রিশ হাজার টাকা বেতন + মামলা তদন্ত ভাতা ও টিএ, ডিএ + রেশন ও পোশাক + বিশেষ ইউনিট এর ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ভাতা।

২। যোগ্যতা থাকলে পদোন্নতি পেয়ে ASP/ Addl.SP/SP পর্যন্ত হওয়ার সুযোগ আছে।

৩। যোগ্যতা প্রমাণ দিয়ে প্রতিটি ১বছরের সেট মিশনে ৫০-৭০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় করা সম্ভব। সাধারণত চাকরি জীবনে ৩টার বেশি মিশন পাওয়া যায় না।

৪। মিশন বা প্রশিক্ষনের সুবিধার্থে বিনা খরচে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভ্রমণের সুযোগ।

৫। সাধারণ মানুষ থেকে মন্ত্রী-এমপি পর্যন্ত যোগাযোগ ও প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে রাষ্ট্রপতির কার্যালয় পর্যন্ত বিচরণ করার সুযোগ পাবেন।

৫। এখানে চাকরির বৈচিত্র্য আছে। আপনি চাইলে ইউনিফর্ম পরে থানায় ব্যস্ততম জীবন-যাপন করতে পারেন অথবা পুলিশের অন্য ইউনিট-এ সিভিলের মতো এসি রুমে ৯টা-৫টা অফিস করতে পারেন।

৬।পারিবারিক ও সামাজিক নিরাপত্তা।

অসুবিধা:
১। চ্যালেঞ্জিং জব। সর্বদা বিচক্ষণ থাকতে হয়।

২। মাঝে মাঝে চরম বিরূপ পরিবেশে কাজ করতে হয়। আপনার সামান্য ভুলের কারণে অপূরণীয় ক্ষতি হতে পারে।

৩। আপনি সৎ হওয়া সত্বেও, কতিপয় লোক আপনার সমালোচনা করতে পারে।

পরবর্তী সুবিধা :
১। পূর্বে এসআই থেকে ইন্সপেক্টর(Popularly known as OC of a thana) এ প্রমোশন পেতে ১৫/১৬ বছর লেগে যেত। সরকারের আন্তরিকতায় বর্তমানে চাকরির মেয়াদ ৫ বছর ও ইন্সপেক্টরশীপ পাস করলেই প্রমোশন হয়ে যায়।

২। পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর টু আইজিপি পর্যন্ত পদের রাঙ্ক ব্যাজ এক ধাপ উন্নতি করার প্রক্রিয়া চলছে। আশা করি খুব শীঘ্রই হয়ে যাবে।

৩। মিশনে যাওয়ার সুবিধা।

পরীক্ষা পদ্ধতি:
১ম ধাপ: শারীরিক পরীক্ষা
২য় ধাপ: লিখিত পরীক্ষা-২২৫মার্ক:
পরীক্ষা হয় ৩ দিন।
মনস্তাত্বিক পরীক্ষা-২৫ মার্ক
বাংলা ও ইংলিশ-১০০ মার্ক
গনিত ও সাধারণ জ্ঞান-১০০ মার্ক।
বাংলা রচনা, ভাবসম্প্রসারন,
এককথায় প্রকাশ, বাগধারা ইত্যাদি
আসে। ইংলিশে paragraph, essay, application, grammar etc থেকে প্রশ্ন হয়। গনিত লাভ ক্ষতি, সুদ কষা, অংশীদারি, সরল অংকের চ্যাপ্টার
গুলো ভালো করে দেখতে পারেন।
সাধারন জ্ঞান সাম্প্রতিক প্রশ্ন গুলো একটু দেখবেন। মনে রাখবেন, সাধারণ জ্ঞান অবশ্যই written question
হবে।
৩য় ধাপ: ভাইভা-১০০ মার্ক।
৪র্থ ধাপ: মেডিকেল টেস্ট ও ভেরিফিকেশন।

সকল পরীক্ষা সফলতার সহিত পাস করলে প্রশিক্ষণ ও নিয়োগের জন্য চূড়ান্তভাবে মনোনীত হবেন।

পরিশেষে, মনে রাখতে হবে আপনার তদন্তের উপর একজন নিরপরাধ/অপরাধীর জীবন/মরন নির্ভর করবে। প্রত্যক্ষভাবে জনসেবা করা, চ্যালেঞ্জ গ্রহণের সৎ মন-মানসিকতা এবং সু-শৃংখলভাবে জীবন-যাপন করতে চাইলে বাংলাদেশ পুলিশে আপনাকে স্বাগতম।

আর সিরিয়াসলি পরীক্ষা দিতে চাইলে আজই পড়া শুরু করে দিন। বিগত বছরের প্রশ্নগুলো দেখে নিজের মতো করে একটি প্ল্যান করে পড়ুন।

সংগৃহীত