বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার জন্য বাংলা, ইংলিশ,জিকে কিভাবে পড়তে হবে এখনো বুঝতে পারছো না?

 

বাংলা, ইংলিশ,জিকে কিভাবে পড়তে হবে এখনো বুঝতে পারতেছোনা?
✅-পড়াশোনা তেমন কিছুই হয়নি এতোদিন, তাই চিন্তিত,নতুন করে শুরু করতে চাও প্রানপনে?
♣-কোচিং করোনা,দারিদ্রতাই ভুগছো,বাড়িতে
একা একা কিভাবে পড়তে বুঝতে পারতেছোনা?
🌠-এ বা সি ইউনিটের প্রিপারেশন বাদ দিয়ে ডি তে প্রিপারেশন নিতে চাও?
🔵তাহলে এ পোষ্টটা তাদের জন্য..
পোষ্টটা সময় নিয়ে পুরাটা পড়লে ইনশাআল্লাহ
তুমি তোমার সমাধান পাবা।
🔯এখনো যাদের পড়াশোনা হতাশাজনক বা এখনো তেমন পড়াশোনা শুরু করোনি তাদের
সব শেষ হয়ে যায়নি।এখনো বাকি দুই-অাড়াই মাস শেষ চেস্টা করলে চান্স পাওয়া সম্ভব।তবে সেক্ষেত্রে অবশ্যই তাকে আগের মত পড়াশোনা করলে চলবেনা,নিজেকে পরিবর্তন করতে হবে।ঢাবিতে চান্স পাওয়ার স্বপ্ন নিয়ে নিজেকে সর্বোচ্চ সিরিয়াস হতে হবে।
◼তুমি বিভিন্ন সমস্যার কারনে কৌচিং করতে পারছোনা,বাড়িতে বসে প্রিপারেশন নিচ্ছো,
তাই বলে আমার দ্বারা হবে না এমন ভাবার কিছু নেই।এই গ্রুপটাতে যে গাইডলাইন দেওয়া হয় তা অনুসরণ করলে,যারা কৌচিং করতে পারছোনা
তাদের সমস্যা হওয়ার কথা না।এ পোষ্টটা পড়লে
বাকি ডিটেলস জেনে যাবে।
♦এখন আর আড়াই মাসের মতো আছে।প্রতিদিন ১০ ঘন্টা করে নিচের পদ্ধতি অনুসরন করে পড়লে তুমি পারবে ইনশাআল্লাহ!
♠এরজন্য প্রথমে তুমি একটা প্রশ্নব্যাংক কিনে নাও।তোমার পরীক্ষা দেওয়ার আগে জানতে হবে কেমনে প্রশ্ন আসে।আর সেটা প্রশ্নব্যাংক দেখে বুঝতে পারবে।এরফলে কোনগুলা বেশি গুরুত্ব দিতে হবে,কোনগুলো না পড়লেও চলবে বুঝতে পারবে।মনে রাখবে, "যার কি ধরণের প্রশ্ন আসে সে সম্পর্কে ধারনা আছে,তার অর্ধেক বই না পড়লেও চলে।
⚫তাছাড়া প্রশ্নব্যাংক পড়ার আরেকটা লাভ হলো পরীক্ষায় প্রশ্নব্যাংক থেকে প্রায় সেম টু সেম প্রশ্ন না আসলেও একই প্রশ্ন একটু ঘুড়িয়ে পেচিয়ে আসে,যা তোমরা প্রশ্নব্যাংক সলভ করলে সহজেই উত্তর করতে পারবে।
তো বুঝতেই পারছো কতোটা গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নব্যাংক।
প্রশ্নব্যাংকের জন্য তোমরা #ইউনিক_ভার্সিটি_সলুশন দেখতে পারো বেস্ট হবে। তাছাড়া এই বইয়ে ১৫টা ভার্সিটির প্রশ্ন একসাথে দেওয়া অাছে।
🔴এবার আসি মূল কথায়।
বি ও ডি ইউনিটে পরীক্ষা হয় বাংলা, ইংলিশ আর জিকেতে......
🔷বাংলা আর জিকে তেমন ব্যাপার না।
আসল খেলা হয় ইংলিশে।
ইংলিশে ভালো মানে চান্স নিশ্চিত।

🔶আসো কিভাবে প্রতিদিন পড়বে বলে দিচ্ছি
ধরে নিচ্ছি তুমি প্রতিদিন কমপক্ষে ১০ঘন্টা পড়ো।
তাহলে,
🔽অাজকে অালোচনা করবো বাংলা নিয়ে:
বাংলাকে তুমি ১০ ঘন্টার মধ্যে সময় দিবে ৩.০০ ঘন্টা।এখন ১০ ঘন্টার চেয়ে বেশি পড়তে পারলে
সময় আরো বাড়াবে।কম পড়লেও তেমনি।তবে
এসময় ১০ ঘন্টার চেয়ে নিচে পড়ে চান্স পাওয়াটা ঝূকিপূর্ণ।
★বাংলাকে চারটা পার্টে ভাগ করবা। যেমন,
১.বাংলার গদ্য এবং পদ্য
২.বাংলা গ্রামার
৩.বিরচন (মুখস্থ অংশ)
৪.প্রশ্নব্যাংক পর্যালোচনা।
১.বাংলা গদ্য এবং পদ্যঃ
★প্রশ্নঃকয়টা প্রশ্ন আসে?
বাংলা গদ্য এবং পদ্য থেকে সাধারনত ৭-৮টা প্রশ্ন আসে।কিরকম প্রশ্ন আসে তা প্রশ্নব্যাংক
পর্যালোচনা করলেই বুঝতে পারবা।
★কিভাবে পড়বো?
এজন্য বইয়ের প্রত্যেকটা লাইন ভালোভাবে বুঝে
পড়বা।শুধু রিডিং পড়ে গেলে কোন ফায়দা নেই।
তথ্যবহুল ও গুরুত্বপূর্ণ লাইনগুলো বারবার পড়বা।আর লেখকের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য,শব্দার্থ,টীকা,সমার্থক শব্দ,বিপরীত শব্দ ইত্যাদিগুলোতে মনোযোগ দিবা।
গল্পে বা কবিতায় ফুল,ফল,নদী,গাছ,পোকা,পাখি,মাছ,বা গল্পের বিশেষ শব্দগুলো ইত্যাদি কি কি আছে আর কতগুলো আছে তা ভালোভাবে লক্ষ্য করে পড়বা।পারলে নোট করে নিবে।আর কবির জন্মমৃত্যু যদি মনে না থাকে এটা বাদ দাও,
প্রশ্ন আসেনা বললেই চলে।
এবার প্রশ্ন, বাংলা সাহিত্যে প্রতিদিন কতটুকু পড়বো? কতমিনিট?
প্রতিদিন ১ টা গদ্য অথবা একটা পদ্য।
অর্থাৎ একদিন পদ্য পড়লে অন্যদিন গদ্য।
আর এরজন্য সময় নিবে মাত্র ১ ঘন্টা।
আমার মতে এই ১ঘন্টা পদ্য শেষ করা সহজ।
কিন্তু অধিকাংশ গদ্য(গল্প) অনেক বড় বিধায় শেষ করা সম্ভব নাও হতে পারে।সেক্ষেত্রে গদ্যকে অংশে ভাগ করে পড়বে।
(খ)বাংলা গ্রামারঃ
★কতটি প্রশ্ন আসতে পারে?
বাংলা গ্রামার থেকে প্রশ্ন আসে প্রায় ৮-১০ এর মতো।কি রকম প্রশ্ন আসে তা জানতে প্রশ্নব্যাংক দেখো।
★কি কি টপিকস থেকে প্রশ্ন আসে?
(★★★ (3 star) গুলা বেশি গুরুত্বপূর্ণ)
♥♥ব্যাকরণিক অংশ♥♥
-----------------------
★বাক্যের শ্রেণীবিভাগ
★★★বাক্য প্রকরণ
★ব্যাকরণ ও এর আলোচ্য বিষয়
★★★বিরাম চিহ্ন ও ব্যাকরণিক চিহ্ন
★বাচ্য
★ধ্বনি ও বর্ণ প্রকরণ ও উচ্চারণবিধি
★★★ধ্বনি পরিবর্তন
★দ্বিরুক্ত শব্দ
★কারক ও বিভক্তি
★ক্রিয়া পদ
★★ক্রিয়ার কাল
★★★ণত্ব ও ষত্ব বিধান
★অনুসর্গ
★পদ প্রকরণ
★বচন
★পদাশ্রিত নির্দেশক
★প্রকৃতি-প্রত্যয়
★★পুরুষ ও স্ত্রী বাচক শব্দ
★শব্দের শ্রেণীবিভাগ
★★সমাস
★★★সন্ধি
★সংখ্যাবাচক শব্দ
★উক্তি পরিবর্তন
★★★উপসর্গ
★ভাষা, বাংলা ভাষা ও বাংলা ভাষারীতি
★কতটুকু সময় দিবো দৈনিক?
এসে গেলাম সবচেয়ে কঠিন জিনিসটা বলতে।
এর জন্য দৈনিক ১ঘন্টা সময় বরাদ্দ করবে ১০ ঘন্টার পড়ায়।একদিনে একটা গ্রামাটিক্যাল টপিকস শেষ না হলে কয়েকদিনে ভাগ করে শেষ করো।
★কিভাবে পড়বো?
গুরুত্বপূর্ণ টপিকসগুলো প্রথমে শুরু করো। টপিকস বাছাই করো।প্রথম থেকে নিয়ম বুঝে বুঝে পড়া শুরু করো।না বুঝলে আবার পড়ো।বারবার মনোযোগ দিয়ে পড়লে আই বিলিভ তুমি বুঝতে পারার কথা।তাও যদি না পারো তাহলে সর্বশেষ কারো সাহায্য নাও।
✅আসলে আমরা, প্রথমেই চেষ্টা করার আগেই চাই কেউ গিলিয়ে দিক,নিজে নিজে বুঝার চেষ্টা করিনা,অথচ একান্তভাবে নিজে চেষ্টা করলে মনুষ্যজাতির ব্রেণে খুব কম জিনিসই না বুঝার আছে।
পড়ার সময় উদাহরনগুলো দেখে নিবে আর নিয়মের সাথে উদাহরনের লিংক খুজে বের করে
সেটা মাথায় সেট করে রেখে দিবে।
আর এটাই হলো ব্যাসিক।এই জিনিসটা পরীক্ষার হল পর্যন্ত নিতে পারলে কেল্লাফতে।
❇আর হ্যা, যদি ব্যাকরনের কোনো টপিকস একেবারেই মাথায় না ডুকে,আর ভাবেন কস্মিনকালেও আর বুঝা সম্ভব না,তাহলে আল্লাহর ওয়াস্তে সেগুলো ছেড়ে দিবেন গুডবাই বলে।
এই না পারা কয়েকটা টপিকসের জন্য হয়তো সর্বোচ্চ রেজাল্ট হবেনা, তবে এগুলোর জন্য যাতে "দূর কিচ্ছু বুঝিনা,কিচ্ছু পারিনা,আমার দ্বারা হবেনা"এই বলে একেবারেই হতাশ হওয়ার চেয়ে ছেড়ে দিয়ে অন্য পারা টপিকসগুলোতে বেশি মনোযোগ দিন,যাতে ঔগুলাতে মিস না হয়।আমি নত্ব-ষত্ব বিধান,বানান শুদ্ধিকরন আর ১-২ টা বাদ দিয়েছিলাম।😊😊
(গ) বিরচন অংশঃ
★কতটি প্রশ্ন আসে?
৬-৮ টি প্রশ্ন আসে "সাধারনত" এ টপিকস থেকে।
★কি কি টপিকস আছে বিরচন অংশে?
♥বাগধারা
♥এক কথায় প্রকাশ
♥বিপরীত শব্দ
♥সমার্থক শব্দ
♥শুদ্ধি-অশুদ্ধি
♥সমোচ্চারিত ভিন্নার্থক শব্দ
★কতটুকু সময় পড়তে হবে?
৪৫ মিনিট করে পড়তে পারো ১০ ঘন্টার বরাদ্দে।
★পড়ার সিস্টেম
২ টা সিস্টেমে পড়তে পারো
(১)একদিন একটা করে টপিকস পড়বে।
কোনদিন কোন টপিকস পড়বে রুটিন করে নিও...
(২)অথবা প্রতিদিন সবগুলো টপিকস থেকে ১০ টা করে পড়বা।অর্থাৎ বিপরীত শব্দ, সমার্থক শব্দ ইত্যাদি সবগুলো বিরচনের টপিকস
থেকে প্রতিদিন প্রত্যকটি থেকে ১০ টি করে পড়বা।
★কিভাবে পড়বে?
এগুলা মূখস্থের বিষয়।প্রথম প্রথম পড়তে অসহ্য লাগবে,পড়লে মনে থাকবেনা।চিন্তা করার কিছু নেই। কয়েকবার করে পড়বে।বারবার রিভিশন দাও।কয়েকদিন পর তুমি বস।
★বুক সাজেস্টঃ বাংলার যে বিষয়গুলো অালোচনা করলাম তার সবকিছুই তোমর #বাংলা_পাওয়ার বইয়ে পাবে। বইটিতে প্রতিটি বিষয় খুব সুন্দরভাবে সাজানো-গোছানো অাছে।
(ঘ)প্রশ্নব্যাংক পর্যালোচনাঃ
প্রতিদিন ১৫ মিনিট সময় দিয়ে কমপক্ষে একটা বিগত সালের প্রশ্ন ব্যাখ্যাসহ সমাধান করবে।
🔵পোষ্টটা একবার না বারবার পড়ো।
পড়তে পড়তে মাথায় পুরো বিষয়টা ঢুকিয়ে নাও আর পড়ার সময় কাজে লাগাও।এভাবে পড়লে ইনশাআল্লাহ চান্স পাবে। এখানে সবচেয়ে সহজভাবে তোমাদের বুঝানো হয়েছে বাংলা নিয়ে।তারপরও না বুঝলে কমেন্টবক্স বা মেসেজে জানাতে পারো।

Follow Us Email