জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত খুবই গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য

 

★★★ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত খুবই গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য :
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের C , C1 , F , I ইউনিট - এই ৪ ইউনিটে বাংলা , ইংরেজি , সাধারণ জ্ঞান , IQ ( বুদ্ধিমত্তা ) - এই ৪ বিষয়ের উপর প্রিপারেশান নিয়ে পরীক্ষা দিতে পারবা। এই ইউনিটগুলোতে সকল গ্রুপের শিক্ষার্থীরাই পরীক্ষা দিতে পারে।
★ পরীক্ষা দেওয়ার যোগ্যতা- বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা সকল ইউনিটেই পরীক্ষা দিতে পারবে । মানবিক, ব্যবসায় শিক্ষা , মাদ্রাসা ও অন্যান্য শাখার শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে পারবে - B , C , C1 , E , F , G , I এই ৭ ইউনিটে ।
অনেকেই জানতে চাও একজন ভর্তি পরীক্ষার্থী একাধিক ইউনিটে পরীক্ষা দিতে পারবে কিনা?
.
হ্যাঁ অবশ্যই। তুমি যদি বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী হও তবে জাবির ১০ টি ইউনিটের সবগুলোতেই পরীক্ষা দিতে পারবা যদি তোমার যোগ্যতা থাকে। আর মানবিক, ব্যবসায় শিক্ষা , মাদ্রাসা ও অন্যান্য শাখার শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে পারবে - B , C , C1 , E , F , G , I এই ৭ ইউনিটের সবগুলোতেই যদি আবেদন করার যোগ্যতা থাকে।
.
★ তোমার যদি ইংরেজিতে B গ্রেড থাকে তবে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের G ইউনিট ব্যতিত বাকি সব ইউনিটেই পরীক্ষা দিতে পারবা। তবে English, IR, Journalism, Economics etc. সাবজেক্ট পেতে গেলে ইংরেজিতে A- ( A মাইনাস) গ্রেড থাকা লাগে। ইংরেজিতে A- ( A মাইনাস) গ্রেড থাকলে তুমি G ইউনিট ( IBA) তেও পরীক্ষা দিতে পারবা।
.
HSC তে ইংরেজিতে C / D গ্রেড থাকলে থাকলে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের A, C1, D, H ইউনিটে কোন সমস্যা ছাড়াই পরীক্ষা দিতে পারবা. A, C1, D, H ইউনিট বাদে আরো ২ টা ইউনিটে আবেদন করা যাবে ( B, C Unit). তবে B ও C ইউনিটে চান্স পেলেও সব সাবজেক্ট পাবানা ইংরেজিতে C/D থাকার কারণে। বি ইউনিটে চান্স পেলে পাবা " ভুগোল ও পরিবেশ " সাবজেক্ট টি। আর কোন সাবজেক্ট পাবানা। এবং সি ইউনিটে চান্স পেলে পাবা " বাংলা " সাবজেক্ট টি। আর কোন সাবজেক্ট পাবানা।
.
* এসএসসি/এইচএসসি তে ৩.০০ থাকলে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন ইউনিটে আবেদন করা যাবে?
-সি, সি১, আই ইউনিটে আবেদন করতে পারবে।
.
* কত নাম্বার পেলে চান্স পাওয়া যাবে?
-জাবির সকল ইউনিটেই ভর্তি পরীক্ষায় অন্তত ৬৫% নাম্বার না পেলে চান্স পাওয়ার সম্ভাবনা নেই। প্রশ্ন সহজ হলে অন্তত ৭০% লাগতে পারে। তবে D,H ইউনিটে ৭৫% নাম্বার লাগবে।
.
✅ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সকল ইউনিটেই বাংলা এবং ইংরেজি থেকে প্রশ্ন করা হয়।বাংলা এবং ইংরেজির জন্য ফলো করতে পারো বাংলা পাওয়ার ও ইংরেজি পাওয়ার বইটি।

✅ আমরা সকলে একটা বিষয় অবগত যে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্ন প্যাটার্ন অন্য সকল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আলাদা।ঢাবির প্রিপারেশন নিয়ে জাবির প্রিপারেশন অসম্ভব। তাই জাবির প্রশ্নের প্যাটার্ন বুঝতে জাবির বিগত বছরের ১০০% ব্যাখ্যা সম্বলিত প্রশ্নব্যাংক "ক্লাইমেক্স প্রশ্নব্যাংক " থেকে বুঝে বুঝে জাবির বিগত বছরের ৫ বছরের প্রশ্নের সমাধান করতে হবে।

✅ এছাড়া জাবির B,E,G ইউনিটে সাধারণ গণিত থাকে। সব গ্রুপের শিক্ষার্থীকেই এই General Math উত্তর করতে হয়। জাবির B ইউনিট ( সমাজবিজ্ঞান অনুষদ, E ইউনিট ( BBA) , G ইউনিট ( IBA) তে পরীক্ষা দিতে চাইলে আপনাকে Math এর প্রিপারেশন নিতেই হবে। এর জন্য " ক্লাইমেক্স Math Solution " বইটা পড়ো।
.
✅ জাবির C, F , G ইউনিটে সকল প্রশ্ন ইংরেজি ভার্সনে হয় অর্থাৎ C, F , G ইউনিটের সাধারণ জ্ঞান প্রশ্ন ও ইংরেজি ভার্সনে হয় । এছাড়াও BUP ও কয়েকটি ইউনিটের সাধারণ জ্ঞান প্রশ্ন ইংরেজিতে হয় । ইংরেজি ভার্সন সাধারন জ্ঞানের বই GK Apps কিনতে পার। বইটি কুরিয়ারে নিতে যোগাযোগ কর 01400879979 নাম্বারে।
✅ সাধারন জ্ঞান এ ভালো করে এবং GK দিয়েই যারা চান্স পেতে চান, তাদের জন্য সবচেয়ে সহজ হবে জাবির C এবং I Unit এ চান্স পাওয়া। কারন C তে জিকে থাকবে ৪০ নাম্বারের এবং I তে থাকবে ৫০ নাম্বারের। তাই জিকে তে ৪০ এ ৩০ এবং ৫০ এ যদি ৪০ পাওয়া যায়, চান্স পাওয়া কোনো ব্যাপার ই না। সহজ কথা হলো এই যে C এবং I Unit এ চান্স পেতে হলে জিকে তে ভালো করতেই হবে।
আর জাবির জিকে যেহেতু আলাদা তাই বাজারের প্রচলিত জিকে বই পড়ে খুব একটা লাভ হবে না এবং এর জন্য সব পড়ার দরকার ও নেই। প্রশ্ন আসবে নির্দিষ্ট টপিকস থেকে এবং সেটা হবে বিষয়ভিত্তিক। তাই যদি জেনে বুঝে পড়তে পারের জিকের প্রস্তুতি মাত্র ২৫-৩০ দিনেই নেওয়া সম্ভব।
আর এজন্য C এবং I Unit এর জন্য জাহাঙ্গীরনগর বেসিক জিকে বইটি পড়লেই যথেষ্ট।
আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য :
.
১। সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ডের শিক্ষার্থীরা জাবির সকল ইউনিটে পরীক্ষা দিতে পারবে।
২। কমার্স এবং আর্টস ব্যাকগ্রাউন্ডের শিক্ষার্থীরা B, C, C1, E, F, G, I ইউনিটে পরীক্ষা দিতে পারবে।
৩। C ইউনিট এবং C1 ইউনিট দুইটা সম্পুর্ন আলাদা ইউনিট হিসেবে বিবেচিত হবে। এবং দুইটা ইউনিটে পৃথক পৃথক ভাবে ফর্ম তুলতে হবে।
৪। F এবং G ইউনিটের বাংলা ব্যতীত অন্যান্য বিষয়ের প্রশ্নপত্র ইংরেজীতে হবে, Climax জাবি ভর্তি সহায়িকা থেকে প্রশ্ন সম্পর্কে ধারনা নিতে পারেন।
৫। A, B, C1, E, D এবং H ইউনিটের প্রশ্ন বাংলায় হবে। C ইউনিটের প্রশ্ন ৫০% বাংলা ভার্সনে ও ৫০% ইংরেজি ভার্সনে হবে।
৬। B,E,G ইউনিটে জেনারেল ম্যাথ থেকে প্রশ্ন আসে।টেনশনের কারণ নাই।এই দুই টাইপের ম্যাথের জন্য বাজারের সবচেয়ে ভালো বই হচ্ছে Climax Math Solution এই বইটির প্রত্যেকটা ম্যাথ প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত স্লভ করলে ভালো করবেন ইনশাল্লাহ।
৭। G ইউনিটে ৭৫ মার্কের MCQ পরীক্ষা হবে। পরীক্ষার সময় ৫৫ মিনিট। পরবর্তীতে ৫ মার্কের ভাইভা হবে।
৮। C1 ইউনিটে ৮০ মার্কের MCQ পরীক্ষা হবে। পরীক্ষার সময় ৫৫ মিনিট। পরবর্তীতে ২০ মার্কের ব্যবহারিক পরীক্ষা নেয়া হবে।
৯। অন্যান্য সকল ইউনিটে ৮০ মার্কের MCQ পরীক্ষা হবে। পরীক্ষার সময় ৫৫ মিনিট।
১০। সকল ইউনিটের MCQ পরীক্ষায় মোট পাশমার্ক ৩৩%। তবে C ইউনিটে ইংরেজি পেতে হলে ইংরেজি তে ১৫ এর মধ্যে কমপক্ষে ৭ পেতে হবে।
১১। সাবজেক্ট ভিত্তিক আলাদা পাশমার্ক নেই। তবে C ইউনিটে ইংরেজি পেতে হলে ইংরেজি তে ১৫ এর মধ্যে কমপক্ষে ৭ পেতে হবে।
১২। G ইউনিটের Viva তে পাশমার্ক ৩৫%।
১৩। C1 ইউনিটের ব্যবহারিক পরীক্ষায় পাশমার্ক ৪০%।
১৪) ভর্তি পরীক্ষা শুধুমাত্র ক্যাম্পাসেই হয়। প্রতিটা ইউনিটকে কয়েকটা শিফটে ভাগ করে পরীক্ষা নেয়া হবে। সকল শিফটে প্রশ্ন আলাদা হয়। তবে প্রশ্নের স্ট্যান্ডার্ড সেইম থাকে।
১৫। ক্যালকুলেটর ব্যবহার করা যাবে না।
১৬। সাবজেক্ট চয়েজ, কোটা সংক্রান্ত সকল কাজ ভর্তি পরীক্ষার পর, মেরিট/ওয়েটিং লিস্টে নাম আসার পর।
১৭) প্রতি ভুল উত্তরের জন্য ০.২০ নাম্বার কাটা যাবে।
১৮) সকল ইউনিটের পরীক্ষা শুধু MCQ পদ্ধতিতে হবে। Written থাকবে না।
১৯) যারা আবেদন করবে তারা সবাই পরীক্ষা দিতে পারবে।
২০) নিয়মিত পড়াশুনা করলে জাবিতে চান্স পাওয়া কঠিন নয় তোমরা নিজেদের যাচাই করতে নিয়মিত মডেলটেস্টে অংশগ্রহন করবে।

Follow Us Email